বিশ্বকাপ জিতেই এমবাপ্পেকে মেসিদের ট্রল

বিশ্বকাপ জিতেও বিতর্কে জড়াল আর্জেন্টিনা। সাজঘরে উল্লাস করতে গিয়ে বিপক্ষ দলের সেরা ফুটবলার কিলিয়ান এমবাপেকে ঠাট্টা করলেন লিয়োনেল মেসিরা।বিশ্বকাপ জেতার পরে সাজঘরে উল্লাস করছিলেন আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা। তখনই দেখা যায়, আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেস সবার সামনে এসে বলেন, ‘‘এমবাপের জন্য এক মিনিটের নীরবতা।’’ মার্তিনেসের এ কথা শোনার পরে আর্জেন্টিনার

বাকি ফুটবলাররা হেসে ওঠেন। তার পরে আবার একসঙ্গে উল্লাসে মাতেন তাঁরা। এই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়েছে নেটমাধ্যমে।আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জিতলেও ফাইনালে নিজের জাত চিনিয়েছেন এমবাপে। ১৯৬৬ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে জিওফ হার্স্টের পরে আবার কোনও ফুটবলার ফাইনালে হ্যাটট্রিক করেছেন। কিন্তু তার পরেও হারতে হয়েছে তাঁকে। পরাজিত নায়ক হয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে এ বারের বিশ্বকাপের সোনার

বুটজয়ীকে।বিশ্বকাপ জেতার পরে সাজঘরে আর্জেন্টিনার উল্লাসে দেখা যায় অচেনা আগ্রাসী মেসিকে। বিশ্বকাপটা হাতছাড়া করতেই চাইছিলেন না আর্জেন্টিনার অধিনায়ক।প্রতিটা মুহূর্তে তাঁকে দেখে মনে হচ্ছিল, কতটা আকুল ছিলেন এই ট্রফির জন্য। সাজঘরে ফিরে ট্রফি নিয়ে উঠে পড়লেন মাঝখানে রাখা টেবিলে। টেবিলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা ছিল কয়েক বোতল অ্যালকোহলহীন বিয়ার। তার মাঝেই লাফালেন বেশ কিছুক্ষণ।

দলের বাকিরা নীচে অধিনায়ককে ঘিরে লাফিয়েই যাচ্ছিলেন। তাঁকে দেখে টেবিলে উঠে পড়েন সতীর্থ লাউতারো মার্টিনেসও।কিছুক্ষণ নাচার পর টেবিলের মাঝে মেসি নামিয়ে রাখলেন বিশ্বকাপ। তার পর আবার শুরু করলেন নাচ। সঙ্গে উল্লাসের সমবেত চিৎকার। থামতেই চাইছিলেন না মেসি এবং তাঁর সতীর্থরা। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন দলের কোচিং স্টাফ এবং অন্য সহকারীরাও। বিশ্ব জয়ের উৎসব কেউ কেউ বন্দি করলেন মোবাইলের ক্যামেরায়। সবই হচ্ছিল লাফাতে লাফাতে।