স্কুলছাত্রীকে অপহরণচেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় অষ্টম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে অপহরণচেষ্টার অভিযোগে রিপন মিয়া নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার(৩ জুলাই) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শনিবার বিকেলে যৌন নিপীড়ন ও অপহরণচেষ্টার অভিযোগ এনে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নবীনগর থানায় মামলা করেন। ওই মালায় শনিবার রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে গ্রেফতার শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় দিগন্ত প্রি ক্যাডেট স্কুলের প্রিন্সিপাল কাজী খলিলুর রহমান।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় একটি স্কুলের অষ্ঠম শ্রেণির ওই ছাত্রী স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে প্রায়ই উত্ত্যক্তসহ প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন দিগন্ত প্রি ক্যাডেট স্কুলের সহকারী শিক্ষক রিপন মিয়া। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার পরিবারকে জানালে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ওই শিক্ষককে একাধিকবার সর্তক করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি ওই ছাত্রীকে অপহরণের পরিকল্পনা করেন।

শনিবার সকালে ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে স্কুলে যাওয়ার সময় পথে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা রিপন মিয়া তাকে জোর করে সিএনজিতে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। এসময় ছাত্রীর চিৎকারে আশপাশের লোকজনসহ তার সহপাঠীরা এগিয়ে আসলে ওই ছাত্রীকে ফেলে পালিয়ে যান রিপন মিয়া।এ বিষয়ে প্রত্যক্ষদর্শী সলিমগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক দেবনাথ মণ্ডল বিডি২৪লাইভকে বলেন,

অপহরণের দৃশ্যটি আমি দেখে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অন্য ছাত্রীদের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করি।বিষয়ে দিগন্ত প্রি ক্যাডেট স্কুলের প্রিন্সিপাল কাজী খলিলুর রহমা বিডি২৪লাইভকে বলেন, তার বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক অভিযোগ ছিল। স্কুলছাত্রীকে অপহরণের ঘটনায় তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশিদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিডি২৪লাইভকে বলেন, মামলার পর অভিযুক্ত শিক্ষককে রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।